অনেকেই বলেন, নিয়মিত ব্যায়াম করেও শরীরের মেদ ঝরাতে পারছেন না। এ কারণে বিরক্ত হয়ে কেউ কেউ ব্যায়াম ছেড়ে দেন।  বিশেষজ্ঞদের মতে, মেদ ঝরাতে ব্যায়ামের পাশাপাশি সঠিক খ্যাদ্যাভাস এবং কিছু নিয়ম মানাও খুবই জরুরি। তারা বলছেন, খাওয়ার পর পরই অনেকেই এমন কিছু কাজ করেন, যা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। যেমন-

ধূমপান : যারা নিয়মিত ধূমপান করেন খাওয়ার পরে তাদের একটা সিগারেট টানার অভ্যাস আছে। সিগারেট খাওয়া এমনিতেই ক্ষতিকর। খাওয়ার পরে সিগারেট খেলে তা রক্তে বিষ ঢোকানোর মতো হয়৷ চিকিত্‍সকরা বলছেন, খাওয়ার পরে একটি সিগারেট খাওয়া মানে ১০টি সিগারেট খাওয়ার সমান ক্ষতি হওয়া শরীরে। এতে রক্তে অক্সিজেনের সঙ্গে দ্রুত মিশে যায় নিকোটিন৷ ফলে বিষক্রিয়া শুরু হয়ে যায়।

ফল খাওয়া : চিকিত্‍সকদের মতে, ফল খাওয়ার আদর্শ সময় হল, খাওয়ার ২ ঘণ্টা পরে অথবা খাওয়ার দু ঘণ্টা আগে। তা না হলে গ্যাস, বদ হজমের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। এ কারণে খাওয়ার পর পরই ফল খাওয়া ঠিক নয়।

চা পান : এটিও একটি বদভ্যাস৷ অনেকেই পেট ভরে খেয়ে, তারপর চায়ে চুমুক দেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, চায়ে থাকা ক্যাফইন হজম ক্ষমতা কমিয়ে দেয়৷ এর ফলে শরীরে বাড়তি টক্সিন জন্ম নেয়। চা খাওয়া উচিত খাবার খাওয়ার অন্তত এক ঘণ্টা পরে।

সাঁতার: বলা হয়, ব্যায়ামের মধ্যে সবচেয়ে কার্যকরী হচ্ছে সাঁতার। কিন্তু খাওয়ার পরেই সাঁতার কাটা মারাত্মক ক্ষতিকর। কারণ পানিতে নামার পরেই শরীরে তাপমাত্রার হেরফের হয়৷ আসলে তখন সব শক্তি খাবারটিকে হজম করানোর কাজে লেগে থাকে৷

ব্যায়াম : খাওয়ার পরেই ব্যায়াম করা ক্ষতিকর৷ চিকিত্‍সকরা বলছেন, খাওয়ার পরে ধীরে ধীরে হাঁটা ভালো৷ কিন্তু কখনওই অতিরিক্ত জোরে হাঁটা ও ব্যায়াম করা উচিত নয়৷

ঘুম : খাওয়ার পরে ঘুমানো একেবারেই ঠিক নয়৷ খাওয়ার পরেই ঘুমালে হজমের সমস্যা হয়। এতে পেটে গ্যাসের সমস্যা তৈরি হয়৷ টক্সিন জমতে থাকে শরীরে৷ তাই খাওয়ার অন্তত ১ থেকে ২ ঘণ্টা পরে ঘুমানো উচিত। সূত্র: নিউজ এইট্টিন