সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

আজ শুক্রবার (৩১ জুলাই) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের ওসমানীনগরের তাজপুর এলাকার তানপুর নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার সাতগাঁও ইউনিয়নের লইয়াকুল গ্রামের স্বপন কুমার দাস, তার স্ত্রী লাভলী রানী দাস ও তাদের তিন সন্তান। দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত তাদের আরেক সন্তানকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, ঢাকা থেকে প্রাইভেট কারে স্বপরিবারে সিলেটে ফিরছিলেন স্বপন কুমার। ভোর ৫টার দিকে তাদের বহনকারী গাড়িটি তাজপুর এলাকার তানপুরে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা কুমিল্লা ট্রান্সপোর্টের একটি বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় প্রাইভেটকারের সামনের অর্ধেক অংশই বাসের নিচে ঢুকে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত হন। গুরুতর আহত একজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে কাটার মেশিন দিয়ে প্রাইভেটকার ও বাসের সামনের অংশ কেটে মৃতদেহ উদ্ধার করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তামাবিল হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইনুল ইসলাম বলেন, ঢাকা থেকে সিলেটগামী প্রাইভেট কারের সঙ্গে কুমিল্লা ট্রান্সপোর্ট বাসের সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। নিহত সবাই প্রাইভেটকারের যাত্রী ছিলেন। তারা ঢাকা থেকে সিলেটে গ্রামের বাড়ি ফিরছিলেন। এছাড়া গুরুতর আহত একজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাসটি জব্দ করা হয়েছে।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন।